শনিবার ৩১ জুলাই ২০২১

১৫ শ্রাবণ ১৪২৮

ই-পেপার

স্টাফ রিপোর্টার

প্রিন্ট সংস্করণ

আগস্ট ২৩,২০২০, ০১:১৩

রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে মুখোমুখি পিএসজি-বায়ার্ন

চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপ নির্ধারণী ম্যাচ দেখা যাবে আজ রাতে। ইতোমধ্যে জয়ের সুবাস পাচ্ছে নেইমারের পিএসজি। তবে অতটা সহজ হবে না পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন বায়ার্ন মিউনিখে হারানো। জার্মান ক্লাবটি এবারের চ্যাম্পিয়ন্স লিগ মৌসুমে সবচেয়ে বেশি গোল করেছে। তাই ষষ্ঠ চ্যাম্পিয়ন্স লিগ শিরোপার দ্বারপ্রান্তে দলটি। কোচ হ্যান্সি ফ্লিকের শিষ্যদেরকে অবশ্য এর আগে চোখ রাঙাচ্ছে পিএসজির রক্ষণাত্মক রেকর্ড। কেননা চলতি মৌসুমে সবচেয়ে কম গোল হজম করেছে থিয়াগো সিলভা-মারকিনিয়োসরা। সংগত কারণেই ফাইনালটা হয়ে দাঁড়িয়েছে পিএসজির রক্ষণ আর বায়ার্ন আক্রমণভাগের লড়াইও। প্রতিপক্ষ গোলমুখে বায়ার্ন মিউনিখের নির্মমতার ঝাঁজটা হাড়ে হাড়ে টের পেয়েছিল বার্সেলোনা। ১৪ আগস্ট রাতে শেষ আটের লড়াইয়ে ব্যাভারিয়ানরাই যে কাতালানদের উপহার দিয়েছিল স্প্যানিশ ক্লাবটির ইতিহাসের সবচেয়ে বড় চ্যাম্পিয়ন্স লিগ হারটি! বার্সেলোনাকে আট-দুই গোলে হারানোর আগ থেকেই আগুনে ফর্মে বায়ার্নের আক্রমণভাগ। চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শুরু থেকে এ পর্যন্ত জিতেছে সবকটি ম্যাচেই, করেছে ৪২ গোল। পথে টটেনহ্যামকে তাদেরই মাঠে হারিয়েছে সাত-দুই ব্যবধানে। চেলসির বিপক্ষে শেষ ষোলোতেও দুই লেগে গোল করেছে সাতটি।বায়ার্নের প্রধান গোলদাতা রবার্ট লেভান্ডোভস্কি আছেন দুরন্ত ফর্মে। গত শুক্রবার ৩২ এ পা দেওয়া এই ফরোয়ার্ড চলতি মৌসুমে গোল করেছেন ১৫টি। ফাইনালে হ্যাটট্রিক করলে ছাড়িয়ে যাবেন রোনালদোর এক মৌসুমে করা সর্বোচ্চ ১৭ গোলের রেকর্ডকেও। তার আক্রমণসঙ্গী সের্জ গেনাব্রিও আছেন দারুণ ছন্দে, করেছেন ৯ গোল। এমন প্রতিপক্ষের মুখোমুখি হতে হলে আর যাই হোক, রক্ষণ ভঙ্গুর হলে চলে না। পিএসজির রক্ষণ সেটা তো নয়ই, উলটো চলতি মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগেরই সেরা। সব মিলিয়ে ছয় গোল হজম করা কোচ থমাস টুখেলের বিপক্ষে তাই বেশ কাঠখড়ই পোড়াতে হতে পারে বায়ার্নকে। এদিকে পিএসজি কেবল রক্ষণকাজেই সিদ্ধহস্ত, ব্যাপারটা এমন নয় মোটেও। চলতি মৌসুমে ২৫ গোল করে জানান দিচ্ছে, কম যায় না তারাও। ছন্দে আছে নেইমার, কিলিয়ান এমবাপে, ডি মারিয়াদের নিয়ে গড়া আক্রমণভাগও। সবকিছু মিলিয়ে পিএসজিও নিজেদের ৫০ বছরের ইতিহাসে প্রথম চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের জোর সম্ভাবনাই দেখাচ্ছে। এমন দলকে ‘নিখুঁত’ বলা ছাড়া উপায় দেখছেন না বায়ার্ন কিংবদন্তি কার্ল হেইঞ্জ রুমেনিগে। বায়ার্নকে সতর্ক করে দিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি তাদের খেলা দেখেছি, দারুণ পোক্ত এক দল তারা। দলটিতে কোনো খুঁত দেখছি না আমি। কোয়ার্টার আর সেমিফাইনালে বায়ার্নের রক্ষণভাগকে উঁচুতে তুলে রাখার কৌশল কিছুটা সমস্যা সৃষ্টি করলেও বড় পরীক্ষায় পড়তে হয়নি। নেইমার, এমবাপেদের মতো গতিময় খেলোয়াড়দের মুখোমুখি হওয়ার আগে রক্ষণকেও প্রাধান্য না দিয়ে পারলেন না বায়ার্ন কোচ ফ্লিক। বললেন, ‘তাদের মুখোমুখি হওয়ার আগে রক্ষণ নিয়ে কিছু কাজ করেছি আমরা। তবে আমরা জানি আমাদেরকে নিজেদের শক্তিমত্তাতেই নির্ভর করতে হবে, যেটা হচ্ছে প্রতিপক্ষকে চাপে ফেলা।

POST COMMENT

For post a new comment. You need to login first. Login

COMMENTS(0)

No Comment yet. Be the first :)