শনিবার ১৫ মে ২০২১

১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

ই-পেপার

Musaddik Ali Babu (Crime Reporter) Dhaka

প্রিন্ট সংস্করণ

সেপ্টেম্বর ০৮,২০২০, ১২:৫১

মাদক ব্যবসায় বাধা দেয়ায় হত্যার অভিযোগ শ্রীপুরে মরদেহ উদ্ধার যুবক পুলিশের সোর্স ছিলেন

গাজীপুরের শ্রীপুরে রাসেল মিয়া (২২) হত্যার ঘটনায় তার বাবা সুজন আলী শ্রীপুর থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন। ওই মামলায় মাওনা ইউনিয়নের দক্ষিণ বারতোপা গ্রামের আবু বক্কর মন্ডলের ছেলে ইমরান হোসেনকে (২৩) চিহ্নিত করে অজ্ঞাতনামা আরও কমপক্ষে ৬ জনকে অভিযুক্ত করা হয়েছে। ওই এলাকায় মাদক ছড়াছড়ির অভিযোগ করেছেন এলাকাবাসী। মামলার বিবরণে বলা হয়েছে, অভিযুক্ত ইমরান হোসেনকে মাদক ব্যবসায়ে বাধা দেয়ায় পরিকল্পিতভাবে ওই যুবককে হত্যা করা হয়েছে। এলাকাবাসী, নিহতের বাবা সুজন আলী ও তার স্বজনেরা জানান, হত্যা ঘটনার আনুমাণিক ১৫ দিন আগে রাসেল মিয়ার তথ্যের ভিত্তিতে পার্শ্ববর্তী সলিংমোড় এলাকা থেকে ইমরান হোসেনকে শ্রীপুর থানার চকপাড়া ফাঁড়ির পুলিশ ইয়াবাসহ আটক করে। আটকের কয়েক ঘণ্টা পর ইমরানের লোকজন ফাঁড়ি থেকে তাকে ছাড়িয়ে আনে। এরপরই যুবক রাসেল মিয়ার সঙ্গে ইমরানের শক্রুতা সৃষ্টি হয়। এলাকাবাসী জানান, এলাকায় মাদক বিক্রি ও সেবনকারীদের সংখ্যা বেড়ে গেছে। যুবকদের মধ্যে এসব ছড়াছড়ি ঘটছে। মাদক বিক্রেতা ও ব্যবহারকারীদের ভ্রাম্যমাণ আদালতে (মোবাইল কোর্ট) দণ্ড দেয়ার ঘটনাও ঘটেছে। চকপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির কনস্টেবল মফিজুল ইসলাম জানান, রাসেল পুলিশের সোর্স হিসেবে কাজ করত। এলাকাবাসী জানান, রাসেল বারতোপা এলাকার শিশু কানন একাডেমি নামে কোচিং সেন্টার পরিচালনা করত এবং এর পাশাপাশি চকপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ ছিল। ফাঁড়ির পুলিশ রাসেলের বাড়িতে যাতায়াত করত। গত ৪ সেপ্টেম্বর পাশের কপাটিয়াপাড়া এলাকা থেকে ফাঁড়ির পুলিশ অভিযুক্ত ইমরানের মামাতো ভাই মৃত হাছেন আলীর ছেলে সোহেল রানাকে গাঁজাসহ আটক করে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট চার হাজার টাকা দণ্ড দিয়ে আদায়ের পর ছেড়ে দেয়া হয়।  প্রসঙ্গত, শনিবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে অভিযুক্ত ইমরান হোসেন যুবক রাসেল মিয়াকে তার বাড়ির সামনে থেকে মিটিং করার কথা বলে মোটরসাইকেলে তুলে নিয়ে যায়। এরই কিছুক্ষণ পর স্থানীয় ভ্যান চালকের কাছ থেকে খবর পাওয়া যায় রাসেলকে পার্শ্ববর্তী বেলতলী এলাকায় জনৈক মাহবুবের বাড়ির পাশে কয়েকজন যুবক মারধোর করছে। পরক্ষণেই ঘটনাস্থলে গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি। পরদিন রোববার সকাল ১০টার দিকে দক্ষিণ বারতোপা এলাকার লবলং খালের বিলাইঘাটা এলাকায় নিচু জমির আইলে যুবক রাসেলের মরদেহ পড়ে থাকা অবস্থায় শনাক্ত করা হয়। চকপাড়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পরিদর্শক কে এম সোহেল রানা জানান, খবর পেয়ে পুলিশ নিহতের মরদেহ সুরতহাল তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দিন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। ইমরানকে আটকের পর দেহ তল্লাশি করে কোনো মাদকদ্রব্য না পাওয়ায় তাকে ছেড়ে দেয়া হয়।  

POST COMMENT

For post a new comment. You need to login first. Login

COMMENTS(0)

No Comment yet. Be the first :)