শনিবার ১৫ মে ২০২১

১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

ই-পেপার

Mamun Hossain

জুন ১৯,২০২০, ০১:১০

৩০ জুনের মধ্যে ৩ মাসের বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের আল্টিমেটাম সাধারণ মানুষের সাথে নির্দয় প্রতারণা

৩০ জুন ২০২০ এর মধ্যে বকেয়া ৩ মাসের বিদ্যুৎ বিল একসাথে পরিশোধের নির্দেশ ও পরিশোধ না করলে পুনরায় বিলম্ব মাশুল ধার্য এবং বিধি অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের যে আল্টিমেটাম বিদ্যুৎ, খনিজ ও জ্বালানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী দিয়েছেন তা সাধারণ মানুষের সাথে নির্দয় প্রতারণার সামিল।

আজ ১৮ জুন ২০২০ বৃহস্পতিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে ভাড়াটিয়া পরিষদের সভাপতি মোঃ বাহারানে সুলতান বাহার এ দাবি করেন।

মোঃ বাহারানে সুলতান বাহার বলেন, “ঢাকাসহ সারাদেশে বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের কারণে সারাদেশ যখন স্থবির, মানুষের আয়-রোজগার যখন প্রায় বন্ধ, সাধারণ মানুষের পক্ষে খেয়ে-পড়ে বেঁচে থাকাই যেখানে চ্যালেঞ্জ হয়ে দেখা দিয়েছে তখন গ্রাহকদেরকে এভাবে বাধ্য করা কোন ভাবে মানবিক কাজ হতে পারে না।”

তিনি বলেন, “করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের শুরুতে সাধারণ মানুষকে বিদ্যুৎ বিল দিতে নিরুৎসাহিত করা হয়েছে। বলা হয়েছে গ্রাহকদের সহযোগিতার স্বার্থে গ্যাস ও বিদ্যুৎ বিলের বিলম্ব মাশুল জুন পর্যন্ত মওকুফ করা হয়েছে। পরবর্তী সময়ে বিল পরিশোধ করলেও কোন সমস্যা হবে না। তাই আর্থিক কষ্টে জর্জরিত সাধারণ মানুষ সরকারের আশ্বাসে আশাবাদী হয়ে বিল পরিশোধ করা থেকে বিরত থাকে। কিন্তু দেশ স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে যাওয়ার পূর্বেই এভাবে মানুষকে একসাথে বিল পরিশোধের আল্টিমেটাম তাদেরকে কে দেয়া প্রতিশ্রুতির ভঙ্গ বলে আমরা মনে করি। এক সাথে এত বিল তাদের উপর বোঝা আরো বাড়িয়েছে। এমনকি কিছু কিছু জায়গায় ভুতুরে বিল আসলেও তা সমাধান করা হচ্ছে না।”

ভাড়টিয়া পরিষদের সভাপতি সরকারের উদ্দেশ্যে আহ্বান জানান, “সাধারণ ভাড়াটিয়াসহ সকল গ্রাহকের কথা চিন্তা করে বিদ্যুৎ বিল পরিশোধের সময়সীমা আরো বাড়ানো হোক। বিলম্ব মাশুল সম্পূর্ণ মওকুফ করা হোক। আরো ৩ মাস পর প্রতিমাসের সাথে এক মাসের করে বিল যোগ করে পরিশোধের সুযোগ দেওয়া হোক। এক সাথে সম্পূর্ণ বিল পরিশোধের আল্টিমেটাম গ্রাহকদের উপর আর্থিক ও মানসিক চাপ তৈরি করছে। এ চাপ থেকে জনগণকে মুক্তি দেওয়ার জোর দাবী জানাচ্ছি।

POST COMMENT

For post a new comment. You need to login first. Login

COMMENTS(0)

No Comment yet. Be the first :)